নায়িকা মানেই ছিপছিপে, উৎকট লাস্যময়ী...বলিউডের সংকীর্ণ আদ্যিকালের সেই সংজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ করেই শেফালি শাহ'র উত্থান। প্রখর অভিনয়ে যেকোনো চরিত্রকেই যে তিনি নিয়ে যেতে পারেন অন্য উচ্চতায়, তা সর্বজনবিদিত। অথচ, এই অসাধারণ শিল্পীর অভিনয়ে আসারই কথা ছিলো না! 

দেশবিদেশের বিখ্যাত মানুষেরা 'বিখ্যাত' হওয়ার আগে যেসব পেশায় ছিলেন, তা নিয়ে ঘাঁটলে মাঝেমধ্যে বিব্রত হতে হয়। বিশ্বখ্যাত অভিনেতা ব্রাড পিট  হলিউডের এক রেস্টুরেন্টের বাইরে 'চিকেন' এর কস্টিউম পড়ে দাঁড়িয়ে থাকতেন। এটাই ছিলো তার চাকরী। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একটা সময়ে বিক্রি করেছেন আইসক্রিম। জনি ডেপ বিক্রি করতেন কলম। জর্জ ক্লুনি আবার এক কাঠি এগিয়ে। জুতো, ইন্সুরেন্স, বিড়ি-সিগারেট সবই বেচেছেন তিনি; জনপ্রিয় হওয়ার আগে। 

এরকম গল্প হতে পারতো বলিউডের শেফালী শাহ'রও। যারা আজিব দস্তানস, দিল্লী ক্রাইম অথবা ওয়ান্স অ্যাগেইন দেখেছেন, তারা নিশ্চিতভাবেই জানেন, কী তুখোড় অভিনয় করেন এই অভিনেত্রী। নায়িকা মানেই ছিপছিপে, উৎকট লাস্যময়ী...বলিউডের সংকীর্ণ আদ্যিকালের সেই সংজ্ঞাকে চ্যালেঞ্জ করেই তাঁর উত্থান। প্রখর অভিনয়ে যেকোনো চরিত্রকেই যে তিনি নিয়ে যেতে পারেন অন্য উচ্চতায়, তা সর্বজনবিদিত। অথচ, তাঁর অভিনয়ে আসার কথাই ছিলো না! 

অসাধারণ এই শিল্পীর অভিনয়ে আসার কথা ছিলো না! 

তিনি হতে চেয়েছিলেন বিমানবালা। বিমানবালা হওয়ার জন্যে আবেদনও করেছিলেন। কিন্তু তার আবেদন গৃহীত হয়নি। শেষমেশ তাই চলে এসেছিলেন অভিনয়ের মঞ্চে। সম্প্রতি তাঁর ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে তিনি নিজেই এ সংবাদ নিশ্চিত করেন। যে সংবাদে বাদবাকি অনেকের পাশাপাশি নিজেও বেশ স্বস্তি পেলাম।

এই স্বস্তির পেছনে কারণ আছে। বেশ কিছুদিন আগে নেটফ্লিক্সে আসা 'আজিব দাস্তানস' সিনেমার শেষ গল্পটা ছিলো 'আনকাহি।' সে সিনেমায় শুধুমাত্র চোখ দিয়ে যে অভিনয় শেফালী শাহ করেছিলেন, তা মনে লেগে থাকবে অনেকদিন। স্নিগ্ধ অভিনয়ের জাদুটোনা বান, সে সাথে পরিমিতিবোধের যে বিরল মিশ্রন তিনি দেখিয়েছিলেন অভিনয়ে, তা অনবদ্য। 'শেফালী' ফুলের মতই শুভ্রতা ছড়িয়েছিলেন পর্দায়! 

আবার এই স্নিগ্ধতাই কর্পুরের মতন উবে গিয়েছে 'দিল্লী ক্রাইম' ওয়েব সিরিজে। যেখানে তার ইস্পাত-দৃঢ় ব্যক্তিত্ব  আর রক্তচক্ষু দেখে চমকে উঠেছিলাম। জাঁদরেল পুলিশ অফিসার, যিনি তুমুল আলোচিত এক কেসের জট খুলতে গিয়ে গলদঘর্ম হচ্ছেন, সে চরিত্র ফুটিয়ে তোলার যদি কোনো বেঞ্চমার্ক থাকে, সেটা অবশ্যই শেফালী শাহ' এর জন্যে তোলা রইলো! 

'দিল্লী ক্রাইম' এ নিজেকে খোলনলচে ভেঙ্গেছেন তিনি! 

'ওয়ান্স অ্যাগেইন' সিনেমায় আবার অনেকটাই অন্য দ্যোতনায় হাজির তিনি। খাবারের মিশেলে মিশে থাকে প্রনয়, সেখানে ক্রমশ হাতছানি দেয় সমাজের ভয়। জীবনযুদ্ধে যুঝতে থাকা এক মধ্যবয়সী নারী, যিনি কখনো সাধারণ, কখনো অসাধারণ। কখনো কোমল, কখনো কঠিন। এরকম রহস্যময় চরিত্রকে জীবন্ত করে তোলা খুবই কঠিন। অথচ, কী প্রখর প্রতাপের সাথেই সে চরিত্রকে সামলালেন শেফালী শাহ। 'নিরাজ কবি এবং শেফালী শাহ' জুটির এই সিনেমায় কিছু ক্ষেত্রে তিনি ছাপিয়ে গিয়েছেন গুণী অভিনেতা নিরাজ কবিকেও! 

পর্দায় এরকম দুর্দান্ত আধিপত্য যার, তিনি যদি হতেন বিমানবালা, তাহলে কার কী লাভ হতো জানি না, দর্শকেরা বঞ্চিত হতেন অদ্ভুত মাদকতায় ভরা এক অভিনেত্রীর পেলব-স্নিগ্ধ অভিনয় উপভোগ করা থেকে। সেদিক থেকে বিবেচনা করলে শেফালী শাহ'র বিমানবালা না হতে পারাটা 'শাপে বর' হয়েই প্রতীয়মান হয়। ললাটের লিখন যার মঞ্চ আলোকিত করার, তিনি অন্য কোথাও যাবেনও বা কেন? 

এই গুণী অভিনেত্রীর জন্যে শুভকামনা। সামনের দিনে আরো ক্ষুরধার অভিনয় নিয়ে তিনি আমাদের সামনে হাজির হবেন, সেটাই একান্ত চাওয়া। 


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা