সাসপেন্স, টেনশন কিংবা ড্রামা'কে যেভাবে এ গল্পে যুক্ত করা হয়, সে সাথে 'জীবন ক্ষুদ্র, যা করার এই মুহুর্তেই করো'র মত ফিলোসোফি'কে দর্শকের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া হয়, সে সব বিবেচনায় ২০২২ সালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সারভাইভাল ড্রামা হিসেবে 'ফল'কে স্বীকৃতি দিতে মোটেও দুইবার ভাবতে হয় না...

'সার্ভাইভাল ড্রামা' ক্যাটাগরির সিনেমাগুলোর সবচেয়ে বড় গুণ- অ্যাকশন, ড্রামা, সাসপেন্স, থ্রিল, হিউমার, ফিলোসফি... প্রায় সবকিছুই প্রপারলি এনে ব্লেন্ড করা যায় এই সিনেমাগুলোয়। এবং সেগুলো অপ্রাসঙ্গিকও লাগে না। 'ইনটু দ্য ওয়াইল্ড' এর 'হ্যাপিনেস ইজ রিয়েল, হোয়েন ইট ইজ শেয়ারড' আপ্তবাক্যকেও যেমন সিনেমার মোড়কে ভেতরে গেঁথে দেয়া যায় ভালো করে, 'কাস্ট অ্যাওয়ে'র 'সারভাইভাল অব দ্য ফিটেস্ট' এর ড্রামাও বেশ ঠিকঠাকই উতরে যায়। 'ওয়ান হান্ড্রেড অ্যান্ড টোয়েন্টি সেভেন আওয়ার্স' সিনেমার মত শুরু থেকে অডিয়েন্সকে হুক করা যায় যেমন গল্পের সাথে, তেমনি 'দ্য সারভাইভাল ফ্যামিলি' সিনেমার সেই জাপানি পরিবার যেভাবে সার্ভাইভ করে বিদ্যুৎহীন পৃথিবীতে, সেটাও হিউমারের বয়ানে আনা যায় পর্দায়। অর্থাৎ, স্পষ্ট এটাই- 'সার্ভাইভাল ড্রামা' নামের এই ক্যাটাগরির গণ্ডি অনেক বড়৷ অনেক কিছুই চাইলে এখানে সংযোজন করা যায়৷ করা যায় বিয়োজনও। সেটুকু বিবেচনাতেই তাই আগ্রহ ছিলো, এ বছরের অন্যতম জনপ্রিয় 'সারভাইভাল ড্রামা' ফিল্ম 'ফল' কেমন করলো? কেনই বা এত কথাবার্তা এ সিনেমাকে নিয়ে? 'সারভাইভাল ড্রামা' জনরার কোন দিককেও বা এ সিনেমা রাখলো ফোকাসে?

'ফল' এর শুরুতেই দেখা যায়- ড্যান, বেকি, হান্টার নামের তিন অভিযাত্রীকে, যারা খাড়া পাহাড় বেয়ে উঠছিলো উপরে। ওঠার পথে দূর্ঘটনা ঘটে, ড্যান মারা যায়। ড্যান ছিলো বেকির স্বামী। স্বামীর এই অকালমৃত্যু বেকি মেনে নিতে পারে না। সে এ ঘটনার পরে অনেকটাই চলে যায় লোকচক্ষুর আড়ালে। পরিবারের সবাই তাকে স্বাভাবিক করার বহুবিধ চেষ্টা করে, এবং ব্যর্থও হয়। যেই চেষ্টারই শেষ অংশ হিসেবে আসে সেই হান্টার, যে হান্টার সেদিনের সে দূর্ঘটনায় বেকি আর ড্যানের সাথে ছিলো। সে বেকি'কে প্রস্তাব দেয়- দুই হাজার ফুট উঁচু একটা পরিত্যক্ত টাওয়ারে ওঠার। বেকি যদিও প্রস্তাব নাকচ করে প্রথমে। কিন্তু, পরে হান্টারের পীড়াপীড়িতে আর সবকিছু নতুন করে শুরু করার প্রত্যয়ে রাজি হয়ে যায়। শুরু হয় দুই বন্ধুর মিশন৷

যাদের অ্যাক্রোফোবিয়া আছে, এ সিনেমা তাদের না দেখাই সমীচীন 

সে মিশনে কি হয়, অথবা না হয়, কিভাবে এই দুইজন আটকে পড়ে দুই হাজার ফুট ওপরের নো ম্যান'স ল্যান্ড এ, সেখান থেকে কিভাবেই বা কামব্যাক করে তারা, বা, আদৌ করতে পারে কি না, সেসব সিনেমায় দ্রষ্টব্য৷ তবে 'ফল' থেকে প্রথমেই যেটা ভালো লাগে- স্ক্রিপ্টের টানটান ট্রিটমেন্ট। একেবারে শুরু থেকেই যে সাসপেন্স তারা বিল্ডআপ করে, সেটা শেষপর্যন্ত থাকে অক্ষয়। যদিও মাঝের কিছু অংশ ওভার মেলোড্রামাটিক ফিল দিয়েছে, কিছু প্লটহোলও ছিলো, কিছু অংশ তাড়াহুড়োর ছিলো... তবে সেসব গল্পের টানটান গতিকে সেরকম শ্লথও করেনা। সম্ভবত এই কারণেই দর্শক 'ফল' দেখেছে দেদারসে। যেহেতু শুরু থেকেই হুকড হবার বিষয় আছে, অ্যাড্রেনালিন রাশের বিস্তর সুযোগ আছে... হাইপ যে হবে এ সিনেমাকে নিয়ে, সেটা খানিকটা স্বাভাবিকও বই কি! 

একটা দৃশ্যের কথা বলা যেতে পারে- বেকি আর হান্টার যখন টাওয়ারের লোহার মই বেয়ে উপরে উঠছে, তখন মরচে ধরা লোহার পাতগুলোকে দেখানো হচ্ছিলো ক্লোজ শটে, মইগুলোর জয়েন্টের স্ক্রু যে পদভারে নিয়মিত বিদ্রোহ করছে, খুলে খুলে আসছে কক্ষপথ ছেড়ে, দেখানো হচ্ছিলো সেসবও। সে সাথে বাতাসের ক্রমশ বাড়তে থাকা গর্জন!  সাসপেন্স আর থ্রিলকে শব্দ, দৃশ্য আর আবহ দিয়ে বাড়ানোর চেষ্টায় কোনো খামতিই  রাখেনি যে সংশ্লিষ্টরা... এ দৃশ্যটিই তার স্বপক্ষে দৃষ্টান্ত। এরকম সিন আছে অজস্র, যারাই মূলত সিনেমাকে টেনে নিয়ে গিয়েছে শেষতক। তবে যেহেতু মূল সিনেমাটা খুব বেশি রানটাইমের না, চরিত্রদের ব্যাকস্টোরি যেহেতু ঠিকঠাক ডেভেলপড হয় না, সেহেতু চরিত্রদের ইমোশনাল জার্নির সাথে অ্যাটাচড হতে গিয়েও কোথায় যেন থমকে যেতে হয় দর্শককে। খানিকটা খচখচানি যেন থেকে যায় সেখানেও।  

চরিত্রদের ইমোশনাল জার্নির সাথে দর্শক অ্যাটাচড হয় না মোটেও

তবে, সেটুকু বাদ দিলেও এ সিনেমা উপভোগ্য। যদিও উপভোগের পাশাপাশি এখানে একটু সতর্কতাও আছে। সেটি হচ্ছে- যাদের 'অ্যাক্রোফোবিয়া' অর্থাৎ উচ্চতার ভীতি আছে, তাদের জন্যে এ সিনেমার কিছু দৃশ্য বেশ অস্বস্তিদায়ক হতে পারে। যেভাবে উচ্চতার ভীতিকে এই সিনেমায় পোর্ট্রে করা হয়, তা অনেককে গা শিউরে ওঠার অভিজ্ঞতাও দেবে৷ তাছাড়া সাসপেন্স, টেনশন কিংবা ড্রামা'কে যেভাবে এ গল্পে যুক্ত করা হয়, সে সাথে 'জীবন ক্ষুদ্র, যা করার এই মুহুর্তেই করো'র মত ফিলোসোফি'কে দর্শকের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়া হয়, সে সব মিলিয়ে ২০২২ সালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সারভাইভাল ড্রামা হিসেবে 'ফল'কে স্বীকৃতি দিতে মোটেও দুইবার ভাবতে হয় না। তবে, পাশাপাশি স্বীকার করতে হয় এও, 'সারভাইভাল ড্রামা' ক্যাটাগরিতে 'ইনটু দ্য ওয়াইল্ড' কিংবা 'কাস্ট অ্যাওয়ে'কে আমরা যেভাবে মনে রাখি, সে তালিকায় 'ফল' ঢোকার সুযোগ সেভাবে পায় না৷ অনেকটা 'ওয়ানটাইম ওয়াচ' এর উচ্চতায় উঠেই থেমে যায় এ সিনেমার যাপিত অ্যাডভেঞ্চার। সেখানেই এই রুদ্ধশ্বাস সফরের পরিসমাপ্তি।


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা