গাজীপুরের একটি সত্য ঘটনা অবলম্বনে 'জানোয়ার' নির্মিত। যে পরিবারের সাথে সত্যিই এই ঘটনাটি ঘটেছিল, তাদের অবস্থা কল্পনা করলেই গা কেঁপে উঠছে। মানুষের চেয়ে বড় জানোয়ার আসলেই সম্ভবত নেই...

জানোয়ারের ট্রেলার বের হয়েছিল অনেক আগে। সেই তুলনায় মূল কন্টেন্ট আসলো অনেক দেরিতে, আজকে। এত দীর্ঘসূত্রিতার কারণে হাইপটা কমে গেলেও, যে ইস্যু নিয়ে জানোয়ার নির্মিত - সেটার হাইপ কখনই কমবে না আর সে বিষয়ে কথা বলা এবং কাজ করা খুবই জরুরি। 

গাজীপুরের একটি সত্য ঘটনা অবলম্বনে জানোয়ার নির্মিত। একই বাসায় মা মেয়ে সহ চারজনের গলা কেটে হত্যা আর ধর্ষণ করে রেখে যায় ডাকাতরা। জাস্ট এটাই গল্প। 

গল্পের জায়গায় নতুনত্ব নেই তবে নতুনত্ব আছে স্টোরিটেলিং এ বা গল্প বলার ঢং এ যার কৃতিত্ব অবশ্যই পাবেন পরিচালক রায়হান রাফি। দেশের কোন কাজে এর আগে এই স্টাইলে গল্প বলা দেখিনি। ধর্ষণের দৃশ্য না দেখিয়ে ধর্ষণ কতটা ঘৃণ্য আর অমানবিক অপরাধ, সেটা বুঝাতে পারাটাই পরিচালকের মুনশিয়ানা। 

জানোয়ারে কোন "স্টার" শিল্পী নেই। তবে যারা আছেন, তারা প্রত্যেকেই নিজেদের সেরাটা দিয়ে কাজ করেছেন। এলিনা শাম্মি, মুনমুন, অপু ভাই, ফরহাদ লিমন, জামশেদ শামিম, রাহুল, অরিত্রি নামের ছোট্ট মেয়েটা, মানসিক প্রতিবন্ধী ক্যারেক্টারে অভিনয় করা ছোট ছেলেটা- প্রত্যেকেই একদম ক্যারেকটারের ভেতর ঢুকে গিয়েছিলেন। তানাহলে এতটা রোমহষর্ক অনুভূতি দেয়া এত সোজা ব্যাপার না। 

জানোয়ারের যে ব্যাপারটার প্রশংসা না করলেই হয়- এর সিনেমেটোগ্রাফি। নয় মিনিটের টানা আনকাট শট আছে। স্ট্যাডিক্যাম ছাড়া এত বড় বড় একেকটা আনকাট শট নেয়ার জন্য ডিওপি রাজু রাজ আর এত বড় একেকটা শটে ফোকাস ঠিক রাখার জন্য ফোকাস পুলার আকরাম অবশ্যই বিশেষ ধন্যবাদ পাবেন। এত দীর্ঘ সময় ধরে শট নেয়ার পরেও সেসব শটে নিজেদের এক্সপ্রেশন বজায় রেখে ঠিকঠাক কাজ করে যাওয়া আরেকবার প্রমাণ করে অভিনেতারা একেকজন কী পরিমাণ ডেডিকেটেড ছিলেন। 

আলাদা করে বলতে চাই সন্ধীর চমৎকার মিউজিক আর ফারহিন খান জয়িতার গাওয়া মন ছুঁয়ে যাওয়া গানটির কথা। গায়িকা জয়িতার আরেকটি পরিচয় দেই, তিনি অভিনেতা খালেদ খানের মেয়ে। 

একটা অসাধারণ টিম ওয়ার্কের রেজাল্ট কতটা ভাল হতে পারে সেটার উৎকৃষ্ট উদাহরণ হল জানোয়ার। জানোয়ার মাস্ট ওয়াচ হলেও সবাইকে দেখতে রেকমেন্ড করতে পারছি না কারণ সবাই এটা নিতে পারবে না। বিশেষ করে দুর্বল হৃদয়ের মানুষেরা। আমি নিজেই দেখে একটা পর্যায়ে খুবই অসুস্থবোধ করছিলাম। এরপরেও বলব- এটা এমন একটা কন্টেন্ট যা সবার দেখা উচিত। 

গাজীপুরের যে পরিবারের সাথে সত্যিই এই ঘটনাটি ঘটেছিল, তাদের অবস্থা কল্পনা করলেই গা কেঁপে উঠছে। মানুষের চেয়ে বড় জানোয়ার আসলেই সম্ভবত নেই।

জানোয়ার খুবই কম খরচে সিনেম্যাটিক এপে দেখা যাচ্ছে। বিকাশ, রকেট থেকে শুরু করে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা আছে। এছাড়া আলাদা করে এয়ারটাইমও থাকছে।


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা