লা কাসা দে পাপেলের তিনটি জনপ্রিয় জিনিস কী কী, তা নিয়ে বলতে বললে অধিকাংশ মানুষ একবাক্যে বলবেন- রেড জাম্পস্যুট, দালি মাস্ক আর 'বেলা চাও' এর নাম। কিন্তু, জানেন কী, এই তিনটি জনপ্রিয় উপাদানের আছে ঐতিহাসিক মূল্যও!

একটু খেয়াল করে দেখলে দেখবেন, সাম্প্রতিক সময়ের যেকোনো নির্মাণের মিশেলে নির্মাতারা সূক্ষ্মভাবে কিছু গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ যুক্ত করে দেন, যেগুলো খালি চোখে অতটা অর্থবহ মনে না হলেও ঠিকঠাক উপলব্ধি করতে পারলে নির্মাণ উপভোগের তৃপ্তিই যেন বেড়ে যায় অনেকটা।  এ প্রসঙ্গে বলা যেতে পারে, বিশ্বব্যাপী তুমুল আলোচিত টিভি সিরিজ 'লা কাসা দে পাপেল' এর কথা।

লা কাসা দে পাপেলের তিনটি জনপ্রিয় জিনিস কী কী, তা নিয়ে বলতে বললে অধিকাংশ মানুষ একবাক্যে বলবেন- রেড জাম্পস্যুট,  দালি মাস্ক আর 'বেলা চাও', গান এর নাম। যারা 'লা কাসা দে পাপেল' এর পাঁড়ভক্ত, তারা প্রত্যেকেই এই তিনটি বিষয়ের সাথে খুব গভীরভাবে পরিচিত। ২০১৭ সালে 'লা কাসা দে পাপেল' এর প্রথম কিস্তি মুক্তি পাওয়ার পরে এই তিনটি অনুষঙ্গ রাতারাতি হয়ে যায় তুমুল জনপ্রিয়। মজার বিষয়, এই তিন উপাদান কিন্তু আবার 'লা কাসা দে পাপেল' এর মূলভাবের সাথেও মেটাফোরিক্যালও কানেক্টেড। কীভাবে? সেদিকেই ক্রমশ এগোচ্ছি। 

প্রথমে আসি, রেড জাম্পস্যুট প্রসঙ্গে। এই সিরিজের প্রথম সিজনে প্রথমবারের মতন রেড জাম্পস্যুট দেখতে পাওয়া যায় রয়্যাল মিন্ট অফ স্পেন এ, যেখানে ডাকাতেরা ডাকাতি করতে গিয়ে উপস্থিত সবাইকে জিম্মি করে এবং সবাইকে জোর করে 'রেড জাম্পস্যুট' এবং 'দালি মাস্ক' পরায়। এই 'রেড জাম্পস্যুট' এবং 'দালি মাস্ক' ডাকাতেরা নিজেরাও পরে এবং যাতে বাইরে থেকে কেউ ডাকাত এবং জিম্মিদের মধ্যে পার্থক্য করতে না পারে, সেজন্যেই এই অভিনব পন্থার মুখাপেক্ষী হয় ডাকাতেরা। বলাই বাহুল্য, ডাকাতদের জন্যে দারুণ এক ক্যামোফ্লাজ হয় এক টেকনিক! 

সেই রেড জাম্পস্যুট!  

কিন্তু এই রেড জাম্পস্যুট এর ব্যাপ্তি শুধু এটুকুই না। আমরা সবাই জানি, 'লাল' ভালোবাসা, রাগ, উত্তাপ, বিদ্রোহ, মুক্তির প্রতীক হিসেবেও ব্যবহৃত হয়েছে সময়ের নানা প্রকোষ্ঠে। এই সিরিজের ডাকাতেরাও 'লাল'কে ব্যবহার করে প্রচলিত সিস্টেমের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ হিসেবে, প্রচলিত সিস্টেমের বিরুদ্ধে উষ্মা হিসেবে। যে উত্তাপ আমরা পুরোটাই টের পাই 'রেড জাম্পস্যুট' এর বদৌলতে। মেটাফোরিক্যালি 'রেড জাম্পস্যুট' হয়ে যায় ডাকাতদের ঝঞ্জাবিক্ষুব্ধ মানসিকতার প্রতীকও।

একই কথা বলা যায়, 'দালি মাস্ক' নিয়েও। স্প্যানিশ চিত্রকর সালভাদর দালি ব্যক্তিজীবনে ছিলেন খামখেয়ালি একজন মানুষ। একদিকে যেমন টাকাপয়সার দিকে প্রবল আকর্ষণ ছিলো তার, আরেকদিকে তিনি এবং তাঁর সাররিয়ালিস্টিক আর্ট প্রত্যাখ্যান করেছিলো ক্যাপিটালিস্ট সোসাইটিকেও। ডাকাতদের মুখোশ হিসেবে জনপ্রিয় 'দালি মাস্ক' তাই ক্যাপিটালিস্ট সোসাইটির প্রতি বিদ্বেষের এক রূপক হিসেবেই উঠে আসে। আবার শুধু তাই না, সালভাদর দালি'র অর্থপ্রীতির মাধ্যমে আমরা ডাকাতদের বিত্তশালী হওয়ার বাসনারও খানিকটা আঁচ পাই যেন। অদ্ভুত এক প্যারাডক্সের মুখোমুখি করে এই দালি মাস্ক! 

সালভাদর দালি ও দালি মাস্ক! 

উনবিংশ শতাব্দীর শেষের দিকে ইতালিতে একটি গান খুব জনপ্রিয় হয়। ধানক্ষেতে কৃষকদের দিয়ে তখন অমানুষিক পরিশ্রম করানো হতো। এই প্রতিবাদের বিপক্ষে ইতালির মান্দিনা শ্রমিকেরা একটি গান রচনা করেন, যে গানের নাম- বেলা চাও। পরবর্তীতে এই গান ইতালিয়ানরা আবারও ব্যবহার করেন; নাজি জার্মানদের বিরুদ্ধে। 'অ্যান্টি-ফ্যাসিস্ট থিম সং' হিসেবে তখন এই গান আবারও তুমুল সাড়া ফেলে। সেই গানকেই পরবর্তীতে যুক্ত করা হয় 'লা কাসা দে পাপেল' এর সাথে। যখন রয়েল মিন্ট অব স্পেন এর নীচ থেকে সুড়ঙ্গ খুঁড়ে বের হওয়ার রাস্তা তৈরি করছে ডাকাতেরা, তখন এই সিরিজে প্রথমবারের মতন 'বেলা চাও' গান ব্যবহার করা হয়। সিরিজের বিখ্যাত দুই চরিত্র- প্রফেসর ও বার্লিনের মুখে পরবর্তীতে শোনা 'বেলা চাও' খানিকটা স্মৃতিকাতরও করে আমাদের। যে গান বহু বছর ধরে মুক্তি ও প্রতিরোধের বিমূর্ত প্রতীক হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে, সে গান দারুণভাবে ফিরে আসে 'লা কাসা দে পাপেল' এ, মুক্তি, বিদ্রোহ, আবেগের প্রতীক হয়ে। 'বেলা চাও' বিশ্বজুড়ে জোয়ার তৈরী করে আবার। 

বার্লিন, প্রফেসর এবং বেলা চাও! 

এ বিষয়ে এই সিরিজের নির্মাতা অ্যালেক্স পিনা জানান মজার এক তথ্য। তারা এই সিরিজের জন্যে মেটাফোরিক্যাল রেড জাম্পস্যুট, আইকনিক দালি মাস্ক এর পাশাপাশি বিশেষ এক থিম সং নিয়ে ভাবছিলেন। কিন্তু, জুতসই কিছু পাচ্ছিলেন না। এরকমই এক সময়ে তাদের এক স্ক্রিপ্ট রাইটার এই গানের সন্ধান দেন। এবং অ্যালেক্স পিনা বুঝতে পারেন,  'বেলা চাও' কেই খুঁজেছেন তারা এতদিন! ফলশ্রুতিতে 'বেলা চাও' যুক্ত হয়ে যায় এই সিরিজের সাথে। বাদবাকিটা আর না বললেও ক্ষতি নেই। সবাই-ই জানেন। 

আগামী পরশু নেটফ্লিক্স থেকে মুক্তি পাবে 'লা কাসা দে পাপেল' এর সিজন ফিনালের প্রথম কিস্তি। সে হিসেবে, আর মাত্র কিছু ঘন্টার অপেক্ষা। রেড জাম্পস্যুট, দালি মাস্ক এবং আইকনিক 'বেলা চাও' নিয়ে শেষবারের মতন পর্দার সমুখে এসে দাঁড়াবেন পরিচিত সেই চরিত্রেরা, যারা ২০১৭ সাল থেকে নানাভাবে বিনোদিত করেছেন আপামর জনসাধারণকে। তাদের এই স্মরণীয় যাত্রার শেষটা মনে রাখার মতন উজ্জ্বল হবে কী না, শেষে এসে তরী ডুববে কী না, তা জানা নেই কারো৷ তা জানা যাবে কিছু সময় পরেই। তবে এটাও ঠিক, এতদিনের দীর্ঘ যে এক যাত্রা তাদের, সে যাত্রাপথের নানা ভাগে তাদের বৈচিত্র্যময় কর্মকাণ্ডের জন্যে বড়সড় এক কৃতজ্ঞতা অবশ্যই পাওনা তাদের। 

তাই, কৃতজ্ঞতার পাশাপাশি শেষের শুরুর জন্যে শুভকামনা থাকবে। থাকবে ভালো কিছুর জন্যে প্রত্যাশাও। এবং সে সাথে প্রত্যাশা থাকবে- রেড জাম্পস্যুট, দালি মাস্ক এবং বেলা চাও এর তুখোড় পূর্নতা নিয়েও!

শুভকামনা! 


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা