ঋষি মারা গেছেন আগেই, তার ছোটভাই রাজীব কাপুরও শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন গতকাল, রাজ কাপুরের ঠিক পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে বেঁচে আছেন কেবল রণধীর। একাধারে নায়ক, প্রযোজক এবং পরিচালক রাজীব কাপুরকে নিয়েই এই আয়োজন...

কিংবদন্তি নির্মাতা রাজ কাপুরের কনিষ্ঠ পুত্র রাজীব কাপুর ফেব্রুয়ারির ৯ তারিখে মাত্র ৫৮ বছর বয়সে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেছেন। শিল্পী, নির্মাতা আর প্রযোজক পরিচয়ের এই তারকা কার্ডিয়াক এরেস্টে ওপারে পাড়ি জমান। রাজীব কাপুড়ের বড় ভাই রণধীর কাপুর (কারিনা কাপুর ও কারিশমা কাপুরের বাবা)  টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে এই সংবাদ নিশ্চিত করেছেনঃ  “আমি আমার ছোট ভাই কে হারিয়েছি...ও আর আমাদের মাঝে নেই”। গত বছরেই পরলোক গমন করেছেন কাপুর খানদানের ঋতু নন্দা ও ঋষি কাপুর। তিন ভাইবোন কে হারিয়ে কাপুর পরিবারে এখন শোকের ছায়া। 

কেউ মারা গেলে তার পুরো জীবন আমাদের সামনে মুহূর্তেই স্মৃতিতে পরিণত হয়। কাছের মানুষেরা দুঃখ ভারাক্রান্ত থাকেন তাদের প্রিয়জন চিরকালের জন্য হারিয়ে গেলো বলে। ভক্তরা  খুঁজে ফেরেন পুরোনো ছবিতে, পত্র-পত্রিকার ফিচারে। সাত বছরের দীর্ঘ অভিনয় জীবন, এরপর রাজীব কাপুর মনোযোগ দেন নির্মাণ আর প্রযোজনায়। আজকের লেখায় আমরা পুনরায় দেখবো রাজীব কাপুরের জীবন। আরেকবার তাকে আবিষ্কার করার চেষ্টা করবো। চলুন দেখে নেই রাজীব কাপুরের বৈচিত্র্যময় জীবনের জানা-অজানা চমকপ্রদ কিছু তথ্য: 

১) রাজ কাপুর ও কৃষ্ণা কাপুরের ছোট ছেলে রাজীবের জন্ম ১৯৬২ সালের ২৫ আগস্ট।

২)  রাজীব কাপুরের ডাক নাম ছিলো “চিম্পু”। প্রিয়জনেরা আদর করে এই নামে ডাকতেন তাকে।

৩) ২১ বছর বয়সে ১৯৮৩ সালে “এক জান হ্যা হাম” চলচ্চিত্রের মাধ্যমে রুপালী পর্দায় অভিষেক ঘটে রাজীব কাপুরের। এরপর ‘আসমান’(১৯৮৪), ‘লাভার বয়’(১৯৮৫), ‘জবরদস্ত’ (১৯৮৫), ‘হাম তো চলে পরদেশ’ (১৯৮৮)-এর মতো ছবিতে অভিনয় করেছেন রাজীব কাপুর। 

বাবা রাজ কাপুরের সঙ্গে তিন ছেলে ঋষি-রণধীর-রাজীব

৪) ১৯৯০ সালে জমিনদার সিনেমায় কাজ করার পর অভিনয় ক্যারিয়ারের ইতি টানেন রাজীব কাপুর, নেমে পড়েন প্রযোজক-নির্মাতার ভূমিকায়।

৫) বাবা রাজ কাপুরের সর্বশেষ সিনেমা “রাম তেরি গঙ্গা মৈলি” -তে অভিনয় করেছেন রাজীব কাপুর। দর্শকেরা এই ছবির জন্যই তাকে সবচেয়ে বেশি মনে রেখেছে, রাখবে। আশির দশকের অন্যতম আলোচিত সুপারহিট এই ছবিতে মন্দাকিনীর সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন রাজীব। 

৬) রাজ কাপুর ও কৃষ্ণা কাপুরের সবচেয়ে ছোট ছেলে  রাজীব কাপুর।  রণধীর কাপুর ও ঋষি কাপুর তার দুই কীর্তিমান ভাই । দুই বোন ঋতু নন্দা আর রিমা জৈন। গত বছর পরলোক গমন করেছেন ঋতু নন্দা ও ঋষি কাপুর। এবার চলে গেলেন পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে সবচেয়ে ছোট রাজীব। কাপুর পরিবারের শোক যেন থামছে না।

৭) ১৯৯১ সালে প্রথম প্রযোজনায় নামেন, সিনেমার নাম হেনা, যেটি পরিচালনা করেছিলেন তার ভাই রণধীর কাপুর।

৮) নির্মাতা হিসাবে অভিষেক ঘটে ১৯৯৬ সালে, প্রেম গ্রন্থ সিনেমার মাধ্যমে। এই সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন তার ভাই ঋষি কাপুর আর মাধুরী দিক্ষিত। 

৯) পরিচালনা, প্রযোজনা সহ চলচ্চিত্রের অন্যান্য শাখায় সুযোগ পেলেও কাপুর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মতো নাম কামাতে পারেননি রাজীব কাপুর, বলতে গেলে আড়ালেই থেকেছেন জীবনের শেষভাগে। 

১০) রাজীবের প্রিয় ছবি ছিল ‘মেরা নাম জোকার’। ছবিটি তিনি দেড়শো বারেরও বেশি দেখেছিলেন বলে জানা গেছে।


ট্যাগঃ

শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা