বাংলা সিনেমায় ক্রমশই বৈচিত্র‍্য আসছে৷ 'রেহানা মরিয়ম নূর' নিয়ে আন্তর্জাতিক মাধ্যমে বিস্তর কথাবার্তা হয়েছে। 'মিশন এক্সট্রিম' সিনেমা দেখার জন্যে হলে উপচে পড়েছে মানুষ৷ ক্রমশই মানু্ষ হচ্ছে হলমুখী। এরকম এক সময়ে যেসব উদীয়মান অভিনেতা ভালো অভিনয় দিয়ে দর্শকের আস্থার জায়গা ধরে রাখছেন, তাদের মধ্যে সিয়ামের নাম তালিকার প্রথম সারিতেই থাকবে...

এম রহিমের অভিষেক নির্মাণ 'শান' শুরু থেকেই থটফুল পোস্টার এবং ইনোভেটিভ ক্যাম্পেইনিং করে যেভাবে ইতিবাচক আবহ তৈরী করেছিলো দর্শক-হৃদয়ে, সম্প্রতি আসা সিনেমার ট্রেলার সে ইতিবাচক আবহকেই যেন পৌঁছে দিয়েছে ভিন্ন আরেক উচ্চতায়। কোনো বাংলা সিনেমার এরকম রোলারকোস্টার ট্রেলার দেখে যেভাবে চমকেছি, সে চমক সিনেমা নিয়েও যে প্রত্যাশা অনেকখানিই বাড়িয়ে দিয়েছে, তা দ্ব্যর্থকন্ঠে বলাই যায়। আশা করি, বাংলা সিনেমার মরা গাঙে যে জোয়ার সম্প্রতি উঠেছে, 'শান' সেখানে মনে রাখার মতই এক সংযোজন হবে। 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, 'শান' এর ট্রেলারে 'অ্যাকশনপ্যাকড' গল্প-বয়ান দেখে যেমন মুগ্ধ হয়েছি, মুগ্ধ হয়েছি সিয়াম আহমেদকে দেখেও। 'পোড়ামন ২' এর রোমান্টিক হিরো হয়ে যাত্রা শুরু করা সিয়াম, 'শান' এর ট্রেলারে যে অবতারে এসেছেন, তা দেখে অবশ্য বিস্মিত হওয়ারই কথা। তবে ট্রেলারে সিয়ামের যে 'রাফ অ্যান্ড টাফ' অ্যাটিচিউড, তা যদি সিনেমাতেও পাই, নিজের 'গুডি বয়' ইমেজ ভেঙ্গে যদি দাপুটে কোনো চরিত্রে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেন সিয়াম, সেটাই হবে সবচেয়ে আশাব্যঞ্জক। পাশাপাশি সিয়ামের আপকামিং সিনেমাগুলোর যে লাইনআপ, তাতে টাইপকাস্ট হয়ে যাবেন কিংবা একই চরিত্রে তিনি বারবার আসবেন...তা মোটেও মনে হয় না। বরং ভিন্ন জনরার, ভিন্ন আবহের গল্পের যেসব নির্মাণের সাথে যুক্ত তার নাম, তাতে তাকে নিয়ে ঘোরতর আশাবাদী হতেই ইচ্ছে করে। 

যেমন- কিছুদিন পরেই আসবে 'মৃধা বনাম মৃধা' নামের এক ফ্যামিলি ড্রামা। নির্মাতা রনি ভৌমিকের অভিষেক সিনেমায় প্রোটাগনিস্ট ক্যারেক্টারেই আছেন সিয়াম। আবার নন্দিত নির্মাতা গিয়াসউদ্দিন সেলিমের ফিচার ফিল্ম 'পাপ-পুন্য'তেও একগাদা গুণী তারকার সাথে আছেন তিনি। বহুল প্রতীক্ষিত সিনেমা; শ্যাম বেনেগালের 'বঙ্গবন্ধু' তে আছেন বেশ গুরুত্বপূর্ণ এক চরিত্রে৷ সুন্দরবনে র‍্যাবের চাঞ্চল্যকর অভিযান নিয়ে নির্মিত দীপঙ্কর দীপনের সিনেমা 'অপারেশন সুন্দরবন'এ আছেন 'র‍্যাব অফিসার' এর চরিত্রে। মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের গল্প নিয়ে নির্মিত রায়হান রাফীর পিরিয়ড মুভি 'দামাল' কিংবা মুহম্মদ জাফর ইকবালের 'রাতুলের রাত রাতুলের দিন' কিশোর উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত সিনেমা 'অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন'...  এই সিনেমাগুলোতেও তার অভিনীত চরিত্রে আছে বৈচিত্র্য, বিস্ময়। 

'শান' এ রাফ অ্যান্ড টাফ সিয়াম! 

যদি সিনেমাগুলোর জনরা খেয়াল করা হয়, দেখা যাবে, এই সিনেমাগুলোর মধ্যে ফ্যামিলি ড্রামা যেমন আছে, অ্যাকশন পটবয়লারও আছে, পিরিয়ড ফিল্ম আছে, আছে আর্টফিল্মও। সুতরাং এটা বলাই যায়, সামনের সময়ে বৈচিত্র‍্যের নানা চরিত্রেই এই অভিনেতাকে দেখা যাবে ক্রমশ, রূপোলী পর্দায়! তবে সিয়ামের সামনের সময় ঠিক কীরকম যাবে, তার অনেকটাই নির্ভর করবে 'শান' সিনেমার সাফল্যের উপর। কেন? কারণ, 'শান' মুক্তি পাচ্ছে সবার আগে। এবং এই সিনেমাতেই সিয়াম হাজির হচ্ছেন এতদিনের চিরচেনা চরিত্র থেকে অনেকটাই ভিন্ন এক অবয়বে। যদি এই সিনেমায় দুর্দান্ত অভিনয় করে সবার আস্থা অর্জন করতে পারেন তিনি, তাহলে বলাই বাহুল্য, তার বাকি সিনেমাগুলো বেশ দুর্দান্ত মোমেন্টাম পাবে। এবং ঠিক সে কারণেই তাই 'শান' এর দিকে শ্যেনচক্ষু থাকবে অধিকাংশ মানুষের।  

'মৃধা বনাম মৃধা'তেও আছেন সিয়াম! 

বাংলা সিনেমায় ক্রমশই বৈচিত্র‍্য আসছে৷ 'রেহানা মরিয়ম নূর' নিয়ে আন্তর্জাতিক মাধ্যমে বিস্তর কথাবার্তা হয়েছে। 'মিশন এক্সট্রিম' সিনেমা দেখার জন্যে হলে উপচে পড়েছে মানুষ৷ ক্রমশই মানু্ষ হচ্ছে হলমুখী। এরকম এক সময়ে যেসব উদীয়মান অভিনেতা দর্শকের আস্থার জায়গা ধরে রাখছেন, তাদের মধ্যে সিয়ামের নাম তালিকার প্রথম সারিতেই থাকবে। আশা থাকবে, কাজ বাছাইয়ে তিনি মনোযোগী ও খুঁতখুঁতে হবেন। কাজের চেয়ে ভালো কাজকে বেশি প্রাধান্য দেবেন। সেটাই হবে তার সম্ভাবনাময় ক্যারিয়ারের জন্যে সবচেয়ে প্রাসঙ্গিক সিদ্ধান্ত। সিয়ামের জন্যে শুভকামনা। পাশাপাশি শুভকামনা তার নবতম সিনেমা 'শান' এর জন্যেও। 


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা