ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত এই লেভেলের ক্লাইম্যাক্স আর টুইস্ট কখনও দেখিনি। এই লাইন নিয়ে আপনি হয়ত হাসিঠাট্টা করতে পারেন, তবে বিশ্বাস করুন, জেনেশুনে বুঝেই এই লাইন লিখছি। এই সিনেমা নেটফ্লিক্স বা অ্যামাজনে রিলিজ পেলে এতদিনে খবর হয়ে যেত। আর হলে রিলিজ পেলে তো কথাই নেই...

একজন ফিমেল পুলিশ অফিসারের ছোটবেলার বেস্ট ফ্রেন্ড নিখোঁজ হওয়ার পর তিনি এই কেসের দায়িত্ব নেন। শুরু থেকে কেসটা যতটা জটিল মনে হচ্ছিল, ক্রমেই কেসটি আরও জটিলতর হতে থাকে। তিনি কি পারবেন তার ছোটবেলার বেস্ট ফ্রেন্ডকে খুঁজে পেতে? 

খুব বেশি আলাপ করব না এই সিনেমাটা নিয়ে। শুধু একটা লাইন বলব- শুধুমাত্র সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার ইতিহাসে না, পুরো ইন্ডিয়ান সিনেমার ইতিহাসে এখন পর্যন্ত আমি এই লেভেলের ক্লাইম্যাক্স আর টুইস্ট দেখিনি। আমার লেখা এই লাইন নিয়ে আপনি হয়ত হাসিঠাট্টা করতে পারেন, তবে বিশ্বাস করুন আমি জেনেশুনে বুঝেই এই লাইন লিখছি। আপনি ঘুণাক্ষরেও কল্পনা করতে পারবেন না সিনেমার শেষটা কেমন হবে বা কী হবে। শেষের ধাক্কাটা সবাই নিতে পারবেন কিনা, সেই ব্যাপারেও আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে। হয়ত সিনেমা দেখা শেষে আমাকে গালমন্দও করতে পারেন। 

অনেক সিনেমায় শুধু একটা কড়া টুইস্ট থাকে আর সিনেমার অন্যান্য ডিপার্টমেন্টের অবস্থা থাকে তথৈবচ। ডিরেক্টর একটা শক ট্রিটমেন্ট দিয়েই বাকি সব এরিয়ার ভুলের মাশুল দিতে চান। এই সিনেমাতে সেটা হয়নি। মেকিং খুবই ভাল। বিশেষ করে বলতে চাই চমৎকার সব ম্যাচ কাটের ব্যবহার। 

থিত্তাম ইরান্দু সিনেমার পোস্টার

রাতসাসান দেখা হয়নি, এমন সিনেমাপ্রেমী হয়ত কমই আছেন। রাতসাসানের অন্যতম সেরা একটা ব্যাপার ছিল- এর দুর্দান্ত ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক, মানে একদম আত্মায় কাঁপন ধরিয়ে দেয়। থিত্তাম ইরান্দুর ডিরেক্টর যেখানে সেখানে কানে তালা লাগানো বিজিএম দেয়ার লোভ সামলাতে পেরেছেন, বিজিএমের ব্যবহার খুবই মিনিমালিস্টিক পর্যায়ে রেখেছেন। এমন কিছু দৃশ্য আছে যেটা অন্যান্য ডিরেক্টররা পেলে সেখানে বিজিএমের মাত্রা বাড়িয়ে দিতেন, আর এই সিনেমার ডিরেক্টর সেসব সিকুয়েল রেখেছেন বিজিএমশূন্য। এই লোভটা সামলাতে পারার কারণে সিনেমাটা বাকি সবার চেয়ে আলাদা হয়েছে। 

সনি লিভের মত অ্যাপে রিলিজের কারণে এই সিনেমা নিয়ে আলোচনা কম। নেটফ্লিক্স বা অ্যামাজনে রিলিজ পেলে এতদিনে খবর হয়ে যেত। আর হলে রিলিজ পেলে তো কথাই নেই। 

হাইলি রিকমেন্ডেড, কারণ সিনেমাটা আমি মাথা থেকে সরাতেই পারছি না। আবার আরেকদিকে মনে হচ্ছে, ধাক্কাটা সবাই নিতে পারবেন কিনা এটা ভেবে রিকমেন্ড করাটা ঠিক হবে কিনা! 

সিনেমার ফিনিশিংটা অদ্ভুত সুন্দর, এর চেয়ে চমৎকার ফিনিশিং আর সম্ভব না। দর্শকের উপরে দায়িত্বের ভার ছেড়ে দিয়ে পরিচালক মুনশিয়ানার পরিচয় দিয়েছেন। সিনেমার এন্ড ক্রেডিট অবশ্যই মিস করবেন না।


শেয়ারঃ


এই বিভাগের আরও লেখা